শুভ জন্মদিন ‘ডন’…

সাল ১৯৭১
দক্ষিন আফ্রিকার তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী জন ভর্স্টার এবং অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যানের বাদানুবাদ! বিষয়? — ক্রিকেটে জাতিবিদ্বেষ এবং দক্ষিণ আফ্রিকা দল জড়িয়ে পড়ছে তাতে। কৃষ্ণাঙ্গদের জাতীয় দলে সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না – এই নিয়ে সে দেশ তোলপাড়! ভর্স্টার এর মতে তাদের যোগ্যতা নেই। অষ্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের তরফ থেকে চেয়ারম্যান জানিয়ে দিলেন – “We will not play them until they choose a team on a non-racist basis.” তিনি জন কে রীতিমতো ভর্ৎসনা করে জানিয়ে দিলেন — তিনি আদৌ ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বা গ্যারি সোবার্সের নাম শুনেছেন?

Cut to
সাল ১৯৮৬
স্থান – পলসমুর জেলখানা….
তৎকালীন অষ্ট্রেলিয় প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম ফ্র্যাসের দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে, সে দেশের জেলবন্দী সংগ্রামী নেলসন ম্যাণ্ডেলার সাক্ষাৎপ্রার্থী তিনি… তাকে দেখা মাত্রই ‘মাদিবা’ র প্রশ্ন –
“Mr Fraser, can you tell me, is Donald Bradman still alive?”

স্যার ডোনাল্ড জর্জ ব্র্যাডম্যান! আজ ২৭ শে আগষ্ট, আজ তাঁর জন্মদিন, ১৯৭১ এর সেই ক্রিকেট প্রশাসক যিনি ক্রিকেটে জাতিবিদ্বেষের প্রবেশ করতে দেননি। পরিসংখ্যানের আতিশয্যে ডুবে থাকা ব্র্যাডম্যান যে শুধুমাত্র সেরা ক্রিকেটার ছিলেন, তাই নয়, দারুন মানুষও ছিলেন। প্রাক্তন অজি ক্রিকেটার ট্রেভর বেইলির কথায় উঠে আসে সেই কথায় – “He was perfectionist, good at everything he did and very nice man as well”, অবশ্য ম্যাণ্ডেলা আর ডনের কখনো সাক্ষাৎ হয়নি৷ মাদিবা জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর ব্র্যাডম্যান তাকে একটা ব্যাট উপহার দিয়ে পাঠান, তাতে লেখা ছিলো – ‘To Nelson Mandela, in recognition of a great unfinished innings’
এরকমই অনেক গল্প আছে ডনকে নিয়ে, তেমনই কিছু পরিসংখ্যান গল্পের মোড়কে শোনা যাক্

ডন ব্র্যাডম্যান এবং তার প্রিয় সাথী

🏏 ৮০ টা ইনিংসে (১০ টা নট আউট) ৬৯৯৬ রান, গড় – ৯৯.৯৪, বলা হয় শেষ ইনিংসে শূন্যের বদলে তিনি যদি চার রান করেও আউট হতেন, তাহলেও তার সর্বকালীন গড় একদম তিনের ঘরে পৌঁছে যেতো। চার্লস ডেভিস নামক এক বিজ্ঞানী তার গবেষণায় দাবী করেন ডনের গড় ১০০ হওয়াই উচিৎ। স্কোরিংয়ের ভুলে ১৯২৮-২৯ অ্যাসেজ সিরিজের টেস্টে তাঁর একটা বাউন্ডারি নাকি জ্যাক রাইডারকে দিয়ে দেওয়া হয়। ওই বাউন্ডারিটা পেলে টেস্ট গড় ১০০ই দাঁড়ায়।

Sachin and Warne met Don on his 90th Birthday

🏏 এক ব্র্যাডম্যান পাগল গবেষক অনেক বছর রিসার্চের পর বলেন যে ডনের পূর্বসূরিরা ইতালীর লোক। পরে জানা যায় তার দাদু জাহাজি ছিলেন, উদ্দেশ্য ছিলো ডাচেদের দেশ কিন্তু পথ ভুলে চলে আসেন সিডনি। এই ভুলটা না হলে হয় তো এমন কিংবদন্তিকে পাওয়া যেতো না যাকে নিয়ে সে দেশের ক্রিকেটার বিল উডফুল বলেছেন – ‘ডন তিনজন অজির সমান’।

🏏 ১৯৪৮ সাল। ভারতে এক আঞ্চলিক দলের সাথে ক্রিকেট খেলছিলো মহারাষ্ট্রের দল, নিম্বলকর নামে এক ব্যাটসম্যান যখন ৪৪৩ রানে অপরাজিত তখন দুই দল এবং আম্পায়ার মিলে সেই ম্যাচটি আর না খেলার সিদ্ধান্ত নেয়। কারণ? ডন ব্র্যাডম্যানে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান ৪৫২, তাই তাদের মনে হয়েছিলো এটা করাই বোধহয় সম্মান জানানো যাবে। একই ঘটনা ঘটেছিলো একটি আন্তর্জাতিক ম্যাচে, অধিনায়ক মার্ক টেলর ব্যাট করছিলেন ৩৩৪ রানে, অপরাজিত। ব্যাট না করার সিদ্ধান্ত নেন। তার মনে হয়েছিলো – ‘স্যার’ কে টপকানোটা ঠিক হবে না৷ কারন – ডন ব্র্যাডম্যানের টেস্ট কেরিয়ার এর সর্বোচ্চ স্কোর ৩৩৪…

সেই প্র্যাক্টিস

🏏 ডন এর শৈশব কেটেছে বাউরালে, সিডনি থেকে বেশ দূরে! তার জীবনের প্রথম শতরান তিনি এখানেরই একটা স্কুলে পড়ার সময় করেন ১২ বছর বসয়ে স্কুল ক্রিকেটে। এইখানের শেফার্ড স্ট্রিটে তাঁর বাড়ির রক্ষণাবেক্ষণের জন্য দান করেছিলেন স্বয়ং শচীনও। বলা হয়, এখানেই একটা পুরোনো জলট্যাঙ্কিতে একটা স্ট্যাম্প দিয়ে আর গলফ বল দিয়ে প্র্যাকটিস করতেন, যা তার রিফ্লেক্সে সাহায্য করেছিলো।

Bradmanesque

🏏 ব্র্যাডম্যান প্রথম শ্রেনীর ক্রিকেটে একই দিনে ২০০ বা তার বেশি রান করেছেন — এমন ঘটনা ২৭ বার ঘটেছে। সুতরাং, বলা যায় তিনি বোলারদের ওপর বেশ কর্তৃত্ব বজায় রেখেই খেলতেন। পরবর্তী কালে Collins English Dictionary তে ডনের এই ডমিনেটিং দৃষ্টিভঙ্গির সম্মানে “Bradmanesque” শব্দটি কে ঠাঁই দেওয়া হয়, যার অর্থ হলো বিপক্ষ দলের বোলারকে ডমিনেট করা।

🏏 প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেট নিয়ে কথা উঠলে বলতে হয় — এই লোকটি ১০০টার বেশি শতরান করেছিলেন এবং সেটা ২৯৫ ইনিংসে, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইংল্যাণ্ডের ডেনিস কম্পটন করতে নিয়েছিলেন মাত্র ৫৫২ টি ইনিংস!

🏏 ডনের সময়কালেই তাঁর তীব্র কম্পিটিটর ছিলেন ‘ওয়ালি’ হ্যামন্ড! গড়ের দিক থেকে তো তাইই। কিন্তু মজার কথা হলো ডন সারাজীবনে টেস্ট কেরিয়ারে কুড়ি ওভার বল করে দুটিই উইকেট পেয়েছিলেন এবং তার মধ্যে একজন ইংল্যান্ডের হ্যামন্ড৷ যদিও প্রথম শিকার ক্যারিবিয়ান ইভান ব্যারো।

🏏 ডনের অধরা রেকর্ডের মধ্যে একটা ৯৭৪ রান, পাঁচ ম্যাচের টেস্টে, ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে । যেটার কাছে গিয়েছিলেন একমাত্র ওয়ালি, ৯০৫ রান। তাছাড়াও টেস্ট সিরিজের সেরা গড় – ২০১.৫, দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে, এটাও অধরা!

🏏 হ্যারাল্ড লারউড, ডগলাস জার্ডিন খ্যাত ১৯৩২-৩৩ এর বিখ্যাত বডিলাইন সিরিজের প্রথম টেস্ট থেকে ডন ব্র্যাডম্যানের সরে যাওয়া নিয়ে ইংল্যান্ড শিবিরে দারুণ হাসাহাসি চলতো। ডন ব্র্যাডম্যান অবশ্য মুখরক্ষা করেছিলেন – ৫ ম্যাচের এই অ্যাশেজ সিরিজে ব্যাটিং গড় ছিলো ৫৬.৫৭! জ্যাক ফিঙ্গলটন নামের এক অজি ব্যাটসম্যান বলেছিলেন – এই সিরিজ ব্র্যাডম্যানের স্টাইলে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনে। বস্তুত এই সিরিজেই ডন জীবনে প্রথম এবং শেষবারের জন্য প্রথম বলে শূন্যরানে আউট হন! পরে লারউডকে এই সিরিজ নিয়ে জিগ্যেস করা হলে তিনি বলেন –
“Bodyline was devised to stifle Bradman’s batting genius. They said I was a killer with the ball, without talking into account that Bradman, with the bat, was the greatest killer of all.” 

সামরিক বাহিনীতে

🏏ব্র্যাডম্যান তার কেরিয়ার চলাকালীন দেশের মোট টেস্ট রানে ২৬ শতাংশই কন্ট্রিবিউট করেছিলেন। ১৯৪০ থেকে ১৯৪৬ এই ছ বছর তার ক্রিকেট জীবন স্তব্ধ ছিলো কারণ তিনি ১৯৪০ থেকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণে সে দেশের সামরিক বাহিনীর সাথে, আবার Air Force এও ছিলেন।

Such an Australian Cricketer

🏏 ভারতীয় ক্রিকেট দলের বিরুদ্ধে ছয় ইনিংসে তাঁর গড় ১৭৮.৭৫, এই সিরিজেই একমাত্র ভারতীয় হিসেবে বিজয় হাজারে তাকে শিকার করেছিলেন। ১৯৪৭-৪৮ এর এই সিরিজের একটা আলাদা গুরুত্ব অবশ্য আছে। প্র্যাকটিস ম্যাচের পর বিল ব্রাউনকে ভিনু মানকড় একটি টেস্টে আবারও সেই বিতর্কিত ”মাকড়ীয়” রান আউট করেন। ধারাভাষ্যকার এবং সংবাদপত্রে ভারতীয়দের স্পিরিট নিয়ে প্রশ্ন ওঠে…! পরে ব্র্যাডম্যান তাঁর আত্মজীবনী “Farewell to Cricket” এ লেখেন – “For the life of me, I can’t understand why (the press) questioned his sportsmanship. The laws of cricket make it quite clear that the non-striker must keep within his ground until the ball has been delivered. If not, why is the provision there which enables the bowler to run him out? By backing up too far or too early, the non-striker is very obviously gaining an unfair advantage.”
এটাই স্যার ডন ব্র্যাডম্যান।

🏏 নামের আগে ‘স্যার’ কেন? কারণ তিনি ‘নাইটহুড’ সম্মানে ভূষিত এবং এখনও পর্যন্ত এই উপাধিতে ভূষিত একমাত্র অস্ট্রেলিয় তিনি৷

🏏 নার্ভাস নাইন্টিন নিয়ে আমরা কত কথা বলি। তিনি কখনো ৯০ এর ঘরে গিয়ে আউট হননি৷ আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে অন্তত তাই-ই।

🏏 অস্ট্রেলিয়ার সমস্ত প্রদেশ এবং প্রদেশের রাজধানীতে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটবোর্ডের যে অফিস আছে সব অফিসের পোস্টঅফিস নাম্বার ৯৯৯৪। এটি স্যার ডনের ব্যাটিং অ্যাভারেজ ৯৯.৯৪ এর সম্মানে।

PO – 9994

🏏 আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে মোট ছটা ছয় মেরেছিলেন, তার মধ্যে একটা ভারতের বিরুদ্ধে আর বাকিগুলো ইংল্যান্ড এর বিপক্ষে। মজার কথা হলো সারাজীবনে তার বাউন্ডারি আর ওভার বাউন্ডারির পাশে দুটো পাঁচ রানও আছে।

🏏 ১৯৭৮ এর দিকে, ডনের অ্যাডিলেডের বাড়িতে আড্ডাতে এককালের বিশ্বত্রাস জেফ থমসন। রসিকতা করে একজন বলেন আজকের ডনকে কি থামাতে পারবেন থমসন! তৎক্ষনাৎ চ্যালেঞ্জ লুফে নেন দুইজনই! তবে নিরাশ হতে হয়েছিলো জেফকেই। মানে খেলা ছাড়ার তিরিশ বছর পরেও এমন রিফ্লেক্স দেখে তাজ্জব বলে গেছিলেন জেফ, যিনি সবে আট বা ন বছর রিটায়ানমেন্ট নিয়েছেন।

পিয়ানোবাদক

🏏 স্যার ডোনাল্ড ব্র্যাডম্যান এর ক্রিকেট শিল্প নিয়ে তো বিস্তর কথা হয়। কিন্তু তিনি আর্টিস্ট ছিলেন যথেষ্টই! ২০১৮ তে আইসিসি একটি প্রতিবেদন বের করে – A Band Of Cricketers, তাতে দেখা যায় মিউজিকের প্রতি তার আগ্রহ। 1930 সালে ”Everyday is a rainbow day for me” বলে একটা গানের রেকর্ড পাওয়া যায়, পিয়ানোবাদক হিসেবেও তার রেকর্ড আছে, ‘Old fashioned locket’ এবং ‘Our bungalow of dreams’ এবল দুটিই ১৯৩০ ইংল্যান্ড সফরে, কলম্বিয়া রেকর্ড স্টুডিও তে করা সেসব। এইসব জিনিসপত্র অবশ্য অনেকদিন চাপা পড়েছিলো, ডোনাল্ড এর নাতনি এগুলো উদঘাটন করে।

🏏 শুধু তাই নয়৷ ১৯৩৬ সালে National Production Ltd.এর সাথে তার চুক্তি হয় এবং সে চুক্তি অনুযায়ী – কোনো সিনেমায় ক্রিকেট খেলার দৃশ্যে তাকে অভিনয় করতে হবে, মানে প্রধানত তার খেলার দৃশ্য দেখানো হবে৷ এই মর্মে একটাই মাত্র পূর্ণদৈর্ঘ্যের ছবিতে দেখা যায় — “The flying Doctor”, সেখানে দিনের শেষে নায়ক (যিনি দর্শক) একজন খেলোয়াড়ের সাথে হাতাহাতিতে জড়িয়ে জেলখানার পথ দেখবেন। এই সিনেমার একটি দৃশ্যে ডন ব্র্যাডম্যানকে খালি গায়ে দেখার সৌভাগ্য হয় দর্শকদের।

ফিল্মে ব্র্যাডম্যান

🏏 রাস্তাঘাট তো নামকরণ করা হয়ই। কিন্তু ব্র্যাডম্যানকে শ্রদ্ধা জানাতে সেদেশের একটা ”বোয়েয়িং” এয়ারক্রাফট কে স্যার ডোনাল্ড ব্র্যাডম্যানের নামে নামাঙ্কিত করা হয়েছে। শুধু তাই নয় গন্ধে ও বর্ণে অতুলনীয় Meilland International SA Breed নামের এক গোলাপ ফুল এর নাম Sir Don Bradman Rose রাখা হয়েছে।

এটিই সেই বিখ্যাত গোলাপ ফুল

🏏 তিন ইনিংসে ৫০ গড় শুরু, তারপর আর ফিরে তাকাতে হয়নি, সবসময়ই ৫০ এর বেশি গড় থাকা কিংবদন্তীর স্কুল জীবনে প্রিয় বিষয় ছিলো গণিত।

🏏 তার শৈশবে বাড়ি যেটা বাউরালের শেফিল্ড স্ট্রিটে, সেখানে সম্প্রতি একটি ক্রিকেট মিউজিয়াম খোলাও হয়েছে। একটি মূর্তিও আছে এখানে, মেলবোর্ন আর অ্যাডিলেডেও মূর্তি আছে এই কিংবদন্তীর৷

বাউরাল, শেফিল্ড স্ট্রিটে বাড়ি – এখন মিউজিয়াম

🏏 ডনকে নিয়ে অনেকে প্রশস্তি বাক্য শোনা গেলেও, আমার কাছে ওয়ালি হ্যামন্ড এর উক্তিটি সেরা, তখন ওয়ালি ক্যাপ্টেন — “I was forced to admire the cool way Don batted. On one or two occasions, when he was well set, and when he saw me move a fieldsman, he would raise his gloved hand to me in mock salute, and then hit the next ball exactly over the place from which the man had just been moved. Reluctantly I had to admit once more that he was out of the ordinary run of batsmen – a genius!”

জিম লিকার এর ভাষ্যে…

🏏 তবে এতো প্রশংসার পরেও স্বদেশীয় বোলার রডনি হগ বলেছেন যে ব্র্যাডম্যান এই যুগে খেললে হয়তো সেরা গড়ে পৌঁছাতে পারতেন না৷ রেডিওতে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন – “Sir Donald Bradman was a freak, but I don’t think he would have averaged 99 now.”

ক্রিকেটার, নির্বাচক এবং ক্রিকেট প্রশাসক প্রতিটি ক্ষেত্রেই তিনি ‘ডন’ ছিলেন, স্বীকার করে নিতেই হবে৷ নিজের খেলার স্টাইল নিয়ে জিগ্যেস করলে বলতেন – “Predominately a back foot player” কিন্তু ৯২ বছরের জীবনে কখনো তাকে ফিরে তাকাতে হয়নি।

শুভ জন্মদিন, স্যার ডোনাল্ড জর্জ ব্র্যাডম্যান৷

আবক্ষ ব্র্যাডম্যান

© শুভঙ্কর দত্ত ✍ || August 27, 2020

তথ্যসূত্র ::

১. আইসিসির প্রতিবেদন – https://www.icc-cricket.com/news/630331

২. নেলসন ম্যান্ডেলা সংক্রান্ত – https://www.news.com.au/nelson-mandela-from-his-prison-cell-can-you-tell-me-is-donald-bradman-still-alive/news-story/a69c4ff23df3f8767079ad1e42fb6e49

৩. শৈশবের বাড়ি – https://www.anandabazar.com/supplementary/anandaplus/special-write-up-on-don-bradman-by-gautam-bhattacharya-1.130014

৪. হগের জবানি – https://sportstar.thehindu.com/cricket/international/bradman-would-not-have-been-as-successful-today-rodney-hogg/article9528527.ece

৫. এছাড়াও অনেক দিন আগে পড়া বেশ কিছু পত্রিকা